খুঁজে পাওয়া গেল সাহারা মরুভূমির চোখ

সাহারা যেটি পৃথিবীর সবথেকে বড় মরুভূমি । সাহারা মরুভুমি না জানি তার বুকে কতইনা অজানা তথ্য লুকিয়ে রেখেছে । এখানে চারিদিকে শুধু বালি আর বালি কিন্তু এই সাহারা মরুভূমির বুকে এমন একটি অদ্ভুত স্থানের অস্তিত্ব আছে যেটা দেখলে আপনিও হয়তো অবাক হবেন । যে এটি কি ? আর মরুভূমির মাঝে এটি কিভাবে তৈরি হলো ? এই স্থানটির নাম দেওয়া হয়েছে eye of Sahara মানে যাকে সাহারা মরুভূমির চোখ বলা হয়ে থাকে । এই স্থানটি আফ্রিকার মৌরিতানিয়ার ওয়াতান গ্রামের পাশে অবস্থিত । স্থানটি দেখতে অনেকটা নীল চোখের মত । বহু বছর ধরে এই স্থানের সম্বন্ধে কেউ জানতো না এমনকি ওখানকার স্থানীয় বাসিন্দারাও জানতো না কারন এই স্থানের ডায়ামিটার ৪০ কিলোমিটার আর ৪০ কিলোমিটার ডায়ামিটার বিশিষ্ট্য কোনো স্থানের স্ট্রাকচার মাটিতে দঁড়িয়ে বোঝা এতটাও সম্ভব নয় ।

Richat Structure

একে Richat Structure-ও বলা হয়ে থাকে । ১৯৬৫ সালে নাসা Gemini 4 মিশান আরম্ভ করেন । চারদিনের এই অভিযানে অ্যাস্ট্রোনমারদের মহাকাশে পাঠানো হয় এবং বলা হয় যে পৃথিবীর উপরিপৃষ্টের ছবি তোলার জন্য বিশেষ করে গোলাকৃতির জিনিসের ছবি । আর এই অভিযানে তারা সাহারা মরুভূমির  মরিতানিয়া অঞ্চলে এই অদ্ভুত গোলাকার যাকে সাহারার চোখ বলা হয় এই স্থানটি খুঁজে পায় । যে স্থান দিয়ে যুগ যুগ ধরে মানুষ যাতায়াত করে সেই স্থানে এমন আকৃতির কিছু থাকতে পারে এটা কেউ বুঝতে পারেনি । আসলে আমি আগেই বলেছি মাটিতে দাঁড়িয়ে এর আকৃতি বোঝা অসম্ভব । এই Richat Structure-কে পুরোপুরি দেখতে হলে আমাদেরকে পৃথিবীর উপরের বায়ুমন্ডলে যেতে হবে কারণ এর ডায়ামিটার 40 কিলোমিটার।

এই স্ট্রাকচারের প্রতিটি চক্র আলাদা আলাদা পাথর দিয়ে তৈরি যা এর রহস্যকে আরও গভীর করে তোলে । এখানকার এইসব পাথরগুলির বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণের পর জানা যায় যে এর বয়স প্রায় ১০ কোটি বছর । এই স্ট্রাকচার কিভাবে তৈরি হয়েছে এই নিয়ে বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক বিভিন্ন মত দিয়েছেন । যেমন কিছু বৈজ্ঞানিক মনে করেন অ্যাস্ট্রোয়েটের ধাক্কার ফলে এই ধরনের গর্তের সৃষ্টি হয়েছে আবার কিছু বৈজ্ঞানিক মনে করেন আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতের ফলে এই ধরনের গর্তের সৃষ্টি হয়েছে কিন্তু এই দুটো তথ্যই এখানকার পাথরের বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণের পর নাকচ করে দেওয়া হয় । আবার কিছু লোক মনে করেন Structure তৈরীর পেছনে এলিয়েন সভ্যতা যুক্ত আছে ।

কিন্তু এই Structure কেন এবং কিভাবে তৈরি করা হয়েছিল এটি আজও একটি রহস্য । আপনারা যদি এই রহস্যময় স্ট্রাকচারটি গুগল ম্যাপে দেখতে চান তাহলে এই (https://goo.gl/maps/vdmFcsy8Lks) লিংককে ক্লিক করে দেখতে পারেন । তবে হ্যাঁ আপনি যখন গুগল ম্যাপে এই জায়গাটি সার্চ করবেন তখন এটি খুবই কাছে থেকে দেখা যাবে যার কারনে আপনাকে জুম আউট করতে হবে তারপরেই আপনি এই স্ট্রাকচারের full view images দেখতে পাবেন ।

Leave a Comment