onlineonline-business

বাংলাদেশের সর্বাধিক বেতনের চাকরী

উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বহুল জনসংখ্যার এই দেশটির অধিকাংশ মানুষই চাকরীর উপর নির্ভরশীল। বলতে গেলে সিংহভাগেরই সরকারী চাকরীর প্রতি ঝোঁক। কিন্তু বাস্তবতা ভিন্ন, খুব কম মানুষই সরকারী চাকরীতে যুক্ত হতে পারেন স্বল্প আসন সংখ্যার জন্য। আর পড়ালেখায় সর্বোচ্চ ডিগ্রীধারীদের ঝোঁক সরকরী চাকরীতেই কিন্তু সেটা দেশের সর্বোচ্চ গ্রেড ও বেতনের চাকরীতে।

সরকারী চাকরী কয়েকটি গ্রেডে বিভক্ত। যোগ্যতা, বেতন, সুযোগ-সুবিধার পার্থক্য আছে এই গ্রেডে। এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা আপনাদের বিভিন্ন গ্রেড সম্পর্কে জানানোর পাশাপাশি বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বেতনের চাকরী সম্পর্কে জানাবো। 

গ্রেড কি

শ্রেণি বা ধাপ এই শব্দটির সাথে আমরা কম বেশি সকলেই পরিচিত। শ্রেণি বা ধাপের শাব্দিক অর্থই গ্রেড। সরকারি ও বেসরকারি চাকরি কয়েকটি গ্রেড তথা ধাপে বিভক্ত। এই গ্রেড দ্বারা বোঝা যায় যে চাকরিজীবী কোন পর্যায়ে আছেন। সরকারি চাকরিতে ২০ টি ধাপ রয়েছে। ২০১৫ সালের বেতন স্কেল অনুসারে বিভিন্ন গ্রেডের চাকরিজীবীরা বেতন ভাতাদি পেয়ে থাকেন।

২০১৫ সালের চাকরি আদেশ এর ৮ নং পরিচ্ছেদ অনুযায়ী সরকারী চাকরিজীবীরা তাদের গ্রেড অনুযায়ী পরিচিত হবেন। ২০ টি গ্রেড সেই হিসেবে নথিভুক্ত হয়েছে আবার এই ২০ টি গ্রেডকে ৪ টি শ্রেণিভুক্ত করা হয়েছে।

  • প্রথম শ্রেনীঃ গ্রেড ১ থেকে গ্রেড ৯
  • দ্বিতীয় শ্রেণীঃ গ্রেড ১০
  • তৃতীয় শ্রেশীঃ গ্রেড ১১ থেকে গ্রেড ১৬
  • চতুর্থ শ্রেণীঃ গ্রেড ১৭ থেকে গ্রেড ২০

এই গ্রেড অনুযায় সরকারী চাকরিজীবীরা সব ধরণের সুযোগ সুবিধা পেয়ে থাকেন।

সরকারী চাকরীর গ্রেড বিভাজন ও বেতন কাঠামো

সরকারী চাকরীর ক্ষেত্রে চাকরিজীবীর বেতন, মান, অবস্খান, ক্ষমতা সহ বিভিন্ন বিষয় নির্ভর করে। সরকারী চাকরির ২০ টি গ্রেড থাকলেও সর্বোচ্চ গ্রেড হলো গ্রেড-১। গ্রেড-১ সরকারের পূর্ণ সচিবদের জন্য নির্ধারিত যাদের নির্ধারিত মূল বেতন ৭৮০০ টাকা । তাছাড়া বিশ্ববিদ্যালেয়ে সিলেকশন প্রাপ্ত অধ্যাপকরাও গ্রেড-১ এর অন্তর্ভুক্ত। বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও বিভন্ন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবগণ গ্রেড-২ এর অন্তর্ভুক্ত। গ্রেড-২ ভুক্ত ব্যক্তিবর্গের মূল বেতন ৬৬০০০-৭৬৪৯০ টাকা  আবার সরকারি কলেজের অধ্যাপক, সরকারের যুগ্ম সচিবগণ গ্রেড-৩ ও গ্রেড-৪ ভুক্ত। গ্রেড-৩ এর মূল বেতন ৫৬৫০০-৭৪৪০০ টাকা এবং গ্রেড-৪ এর মূল বেতন ৫০০০০-৭১২০০ টাকা।  বিভিন্ন বিভাহের পরিচালক, এমপিওভুক্ত কলেজের উপাধক্ষ্যগণ এর মূল বেতন ৪৩০০০-৬৯৮৫০ টাকা, যারা গ্রেড-৫ এর অংশিদার। গ্রেড-৬ এ আছেন উপপরিচালক, সিনিয়র কনসালটেন্ট, হজ অফিসার প্রমুখ। তাদের মূল বেতন ৩৫৫০০-৬৭০১০ টাকা। আবার গ্রেড-৭ এর ব্যক্তিবর্গের মূল বেতন ২৯০০০-৬৩৪১০ টাকা। যারা জুনিয়র কনসালটেন্ট, সার্জন, ফিজিশিয়াস সহ বিভিন্ন পদে আসিন থাকেন। এভাবে গ্রেড ২০ পর্যন্ত প্রত্যেক সরকারি চাকরিজীবীরাই অন্তর্ভুক্ত আছেন। মূল বেতনের তালিকাটা নিচে উল্লেখ করা হলো।

 

            গ্রেড                             মূল বেতন

           গ্রেড-১                         ৭৮০০০/- (নির্ধারিত)

           গ্রেড-২                   ৬৬০০০/- থেকে ৭৬৪৯০/-

           গ্রেড-৩                   ৫৬৫০০/- থেকে ৭৪৪০০/-

           গ্রেড-৪                   ৫০০০০/- থেকে ৭১২০০/-

           গ্রেড-৫                   ৪৩০০০/- থেকে ৬৯৮৫০/-

           গ্রেড-৬                   ৩৫৫০০/- থেকে ৬৭০১০/-

           গ্রেড-৭                   ২৯০০০/- থেকে ৬৩৪১০/-

           গ্রেড-৮                   ২৩০০০/- থেকে ৫৫৪৭০/-

           গ্রেড-৯                   ২২০০০/- থেকে ৫৩০৬০/-

           গ্রেড-১০                 ১৬০০০/- থেকে ৩৮৬৪০/-

           গ্রেড-১১                 ১২৫০০/- থেকে ৩০২৩০/-

           গ্রেড-১২                 ১১৩০০/- থেকে ২৭৩০০/-

           গ্রেড-১৩                 ১১০০০/- থেকে ২৬৫৯০/-

           গ্রেড-১৪                 ১০২০০/- থেকে ২৪৬৮০/-

           গ্রেড-১৫                 ৯৭০০/-   থেকে ২৩৪৯০/-

           গ্রেড-১৬                 ৯৩০০/-   থেকে ২২৪৯০/-

           গ্রেড-১৭                 ৯০০০/-   থেকে ২১৮০০/-

           গ্রেড-১৮                 ৮৮০০/-   থেকে ২১৩১০/-

           গ্রেড-১৯                 ৮৫০০/-   থেকে ২০৫৭০/-

           গ্রেড-২০                 ৮২৫০/-   থেকে ২০১০০/-

এই মূল বেতনের সাথে সরকারী চাকরিজীবীরা আরো কিছু ভাতা পেয়ে থাকেন। যে কারণে তাদের বেতনের টাকার পরিমাণটা অনেকটা বেড়ে যায়। ভাতা গুলো হলোঃ

  • উৎসব ভাতা
  • নববর্ষ ভাতা
  • চিকিৎসা ভাতা
  • ছুটি এবং শ্রান্তি ও বিনোদন ভাতা
  • শিক্ষা সহায়ক ভাতা
  • পাহাড়ি ও দুর্গম অঞ্চল ভাতা
  • অবসর ভাতা
  • ভ্রমণ ভাতা
  • আপ্যায়ন ভাতা
  • মাতৃত্বকালীন ভাতা
  • অন্যান্য ভাতা 

সরকারি বিশেষ ব্যক্তিবর্গের বেতন

যদিও বিশেষ ব্যক্তিবর্গের সাথে সাধারণ সরকারি চাকরিজীবীর বেতনের তুলনা করা যায় না তবে জেননে রাখা ভালো। প্রিয় পাঠক, আপনাদের জান্য সরকারি বিশেষ ব্যক্তিবর্গের বেতন সমূহ তুলে ধরা হলো।

        পদের নাম                            মাসিক বেতন

প্রজাতন্ত্রের মাননীয় রাষ্ট্রপতি    ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা

প্রজাতন্ত্রের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী   ১ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা

মাননীয় স্পিকার                               ১ লক্ষ ১২ হাজার টাকা

 মাননীয় প্রধাণ বিচারপতি             ১ লক্ষ ১০ হাজার টাকা

 মাননীয় মন্ত্রীগণ                               ১ লক্ষ ৫ হাজার টাকা

 উচ্চ আদালতের বিচারক              ৯৫ হাজার টাকা

 মন্ত্রীপরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রীর

 মুখ্য সচিব ও তিন বাহিনী প্রধান      ৮৬ হাজার টাকা

 জ্যেষ্ঠ সচিব                      ৮২ হাজার টাকা

  সংসদ সদস্য                     ৫৫ হাজার টাকা

উপরিউক্ত তালিকার বেতন গুলো হলো মূল বেতন। অর্থাৎ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা, ভাতা ব্যতিরেখে। 

বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বেতনের চাকরি

সরকারি বিশেষ ব্যক্তি বর্গের বেতন সম্পর্কে জেনেছি ইতোমধ্যে। এই বিশেষ ব্যক্তিবর্গ ছাড়াও সাধারণ ব্যক্তিরাও সর্বোচ্চ বেতনের অংশীদার।আর তারা প্রথম শ্রেণী ভুক্ত। সেসব চাকরী সম্পর্কে জানবো এ পর্যায়ে।

১. বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস বা বিসিএস

সাধারণত সরকারি চাকরিকে দুটি ভাগে ভাগ করা যায়। একটি হলো মিলিটারি অপরটি সিভিল।

বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে আমরা সিভিল তথা প্রশাসনিক চাকরি সম্পর্কে বিস্তারিত জানবো। সিভিল  বলতে মূলত প্রশাসনিক কর্মক্ষেত্রকে বোঝায়। প্রশানিক বলতে মেজিস্ট্রেট, জেলা প্রশাশক, মন্ত্রাণলয়ের সচিব ইত্যাদি। অন্যদিকে সার্ভিস হলো পুলিশ, ট্যাক্স, পররাষ্ট্র, কাস্টমস, অডিট, শিক্ষা ইত্যদি সার্ভিসকে বোঝায়।

বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস কে সংক্ষেপে বিসিএস বলা হয়। আর বিসিএস উত্তীর্ণ চাকরিজীবীদের বলা হয় বিসিএস ক্যাডার। সরকারি চাকরির জন্য সুনিদৃষ্ট প্রশিক্ষণের মাধ্যমে নিয়োগপ্রাপ্তদের বিসিএস ক্যাডার বলা হয়। বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের সুপারিশকৃত চাকরিজীবীরা গ্রেড-১ এর অন্তর্ভুক্ত।

বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন দ্বারা নির্ধারিত বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের ১৪ টি সাধারণ ক্যাডার ও ১২ টি কারিগরি ক্যাডির সহ সর্বমোট ২৬ টি ক্যাডার রয়েছে।

সাধারণ ১৪ টি ক্যাডার 

১.প্রশাসন

২.আনসার

৩. নিরীক্ষা ও হিসাব

৪. সমবায়

৫. শুল্ক ও আবগারি

৬. পরিবার পরিকল্পনে

৭. খাদ্য

৮. পররাষ্ট্র

৯. তথ্য

১০. পুলিশ

১১. ডাক

১২. রেলওয়ে পরিবহন ও বাণিজ্য

১৩. কর

১৪. বাণিজ্য

 

কারিগরি ১২ টি  ক্যাডার

১. সড়ক ও জনপথ

২. গণপূর্ত

৩. জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল

৪. বন

৫. স্বাস্থ্য

৬. রেলওয়ে প্রকৌশল

৭. পশু সম্পদ

৮. মৎস

৯. পরিসংখ্যান

১০. কারিগরি শিক্ষা

১১. কৃষি

১২. সাধারণ শিক্ষা 

প্রথম শ্রেণী ভুক্ত এসব চাকরির বেতন ২০১৫ সালের বেতন স্কেল অনুযায়ী নির্ধারিত হয়। 

২. প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে চাকরি

সর্বচ্চো বেতনের সরকারি চাকরির মধ্যে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের চাকরি অন্যতম। দেশ ও জাতির জন্য কিছু করার সুযোগ এঁদেরই বেশি। সেই সাথে সর্বচ্চো বেতন ও বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা তো থাকছেই। এই চাকরি বাংলাদেশের অন্যান্য চাকরির চেয়ে বেশি সন্মান জনক। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের কয়েকটি ভাগ রয়েছে এগুলো হলো-

  • বাংলাদেশ আর্মি
  • বাংলাদেশ নেভি
  • বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ
  • প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়

৩.ব্যাংকে চাকরি

বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বেতনের সরকারি চাকরির আরেকটি হলো ব্যাংকে চাকরি। ব্যাঙ্কের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা হওয়া প্রত্যকেরই আকাঙ্খার শীর্ষে। বাংলাদেশের সরকারি ব্যাংক গুলো হলো-

  • সোনালী ব্যাংক
  • রুপালী ব্যাংক
  • অগ্রণী ব্যাংক
  • জনতা ব্যাংক
  • বেসিক ব্যাংক লিমিটেড
  • বাংলাদেশ ডেভলপমেন্ট ব্যাংক

৪. চিকিৎসক

সেবাদানকারী পেশার মধ্যে চিকিৎসা প্রধাণ। সৃষ্টিকর্তার দয়ায় মানুষের জীবন রক্ষা করেন চিকিৎসক। ত্যাগ ও ভালোবাসার এই পেশা সন্মানের পাশাপাশি অর্থ এনে দেয়। সরকারি ডাক্তারদের বেতন ভাতাদি সর্বোচ্চ বেতনের সামিল।

৫. বিজ্ঞানী

উদ্ভাবন, গবেষণা এসব নিয়ে কাজ করেন বিজ্ঞানীরা। বাংলাদেশের সর্বচ্চো চাকরীর মধ্যে বিজ্ঞানীরাও অন্তর্ভুক্ত। তারা দেশের নিউক্লিয়ার রিসার্চ ও বিভিন্ন সংস্থার সাথে কাজ করে থাকেন। তারাও বেতনের সাথে সরকারী আবাসন ও চিকিৎসাবীমা পেয়ে থাকেন। 

৬. শিক্ষকতা

জাতির মেরুদন্ড গড়েন শিক্ষক। বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিসিএস শিক্ষকরা প্রথম শ্রেণীর চারিজীবী। সর্বোচ্চ বেতনের তালিকায় শিক্ষকও আছেন।

৭. বাংলাদেশ পুলিশ

পুলিশ দেশের আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। বাংলাদেশের পুলিশ নিয়ে নানান মতভেদ থাকলেো পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাগণ সর্বোচ্চ বেতন পেয়ে থাকেন।

৮. রেলওয়ে অফিসার চাকরি

রেলপথ বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় পথ। বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বেতনধারী চাকরির মধ্যে রেলওয়ে অফিসার অন্যতম। ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রী থাকলে এই পদে আসিন হওয়া সহজ।

৯. বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড

বাংলাদেশের বিদ্যুৎ সরবরাহ হয় বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের মাধ্যমে। সারাদেশে প্রতিটি জেলায় রয়েছে এর শাখা। বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড তথা BPDB এর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারাও সর্বোচ্চ বেতন ভাতা পেয়ে থাকেন।

তালিকাভুক্ত এসব চাকরি ছাড়াও আরো কিছু চাকরি রয়েছে তবে এগুলোই সর্বচ্চো বেতনের দিক থেকে শীর্ষে।

শেষ কথা

পড়ালেখা শেষে সকলেই চায় উচ্চপদস্থ পদে আসিন হতে এবং সর্বচ্চো বেতন পেতে। তরুণ সমাজের চাহিদাই এটা। এসকল পদ সম্পর্কে জেনে ছাত্ররা আগে থেকে প্রস্তুতি নিতে পারবে তাদের চাকরির জন্য। সেই সাথে এসব চাকরির পদ সম্পর্কেও পাঠকরা ভালো ধারণা পেয়েছেন বলে আশা রাখি। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/myblogbd/public_html/wp-includes/functions.php on line 5279