পৃথিবীর অন্যতম রহস্যময় দেশ মিশর

পৃথিবীর অন্যতম রহস্যময় দেশ মিশর যে নিজের পিরামিড ও মমির জন্য সারা পৃথিবীতে বিখ্যাত কিন্তু এই সব কিছু ছাড়াও মিশরের এমন কিছু রহস্য আছে যেটা আপনি হয়তো আজও জানেন না । প্রাচীন মিশরের লোকেরা চুলের প্রতি খুবই ঘৃনা করত আর এর মূল কারণ তাদের নিয়ম-রীতি । প্রাচীন মিশরের লোকেরা মনে করত যে শরীরে চুল থাকা স্বাস্থ্যের পক্ষে হানিকারক কিন্তু মিশরের চিত্রতে বেশিরভাগ সময়ই চুল দেখা যায় যেগুলি কখনোই আসল হতো না ।

পৃথিবীর অন্যতম রহস্যময় দেশ মিশরে যখনই কোনো উঁচু পদের ব্যক্তি বা ফ্যারাও-র মৃত্যু হতো তখনই তাদের সাথে কিছু কর্মীদের মেরে ফেলা হতো যাতে তারা মৃত্যুর পরেও ফ্যারাও-র সেবা করতে পারে । বৈজ্ঞানিক গবেষণার পর বৈজ্ঞানিকেরা মনে করেন যে প্রাচীন মিশরের লোকেরা গণিতে খুব তেজ ছিল । তাদের দ্বারা তৈরি বিভিন্ন স্তুপ পরিষ্কার প্রমাণ করে যে তারা গণিতে খুবই উন্নত ছিল । আজ পর্যন্ত আবিষ্কার অনুসারে প্রাচীন মিশরের লোকেরা গর্ভধারণ থেকে বাঁচার জন্য মাটি,মধু আর কুমিরের মিশ্রণ তৈরি করে মহিলাদের যোনিতে দেওয়া হতো যেটা শুক্রাণু মারার জন্য কার্যকারী উপায় বলে মনে করা হতো ।

পৃথিবীর অন্যতম রহস্যময় দেশ মিশরে বিড়ালও সেই সময় একটি আলাদা স্থান লাভ করেছিল । এই সময় যখনই তাদের বিড়াল মারা যেত তখন তারা বিড়ালকেও মমি তৈরি করত আর তাদের সাথেই ইঁদুরদেরও । পিরামিড আজ পর্যন্ত ইতিহাসের সবথেকে বড় রহস্য যে এগুলি তৈরি করেছে কারা ? এটা পরিষ্কার বোঝা যায় যে এগুলি তৈরি করার কাজ খুবই কঠিন ছিল আর এমন অনেক প্রমাণ পাওয়া গেছে যেগুলো থেকে সন্দেহ জন্মায় যে পিরামিড তৈরি করার লোক মিসরবাসী ছিল না । এগুলি তৈরি করা লোকের কাছে গণিতের এতটাই জ্ঞান ছিল যে সেই সময়ের লোকেদের বুদ্ধির বাইরে ছিল ।

Leave a Comment