বাংলাদেশে ভাল বেতনের ৫ টি ব্লু কলার বা দক্ষতা ভিত্তিক চাকরি


ব্লু কলার চাকরি

বাংলাদেশে চাকরির বাজার সর্বদাই পরিবর্তনশীল। সময়ের সাথে সাথে তাই এখানে বিভিন্ন রকমের চাকরির চাহিদা ও সুযোগও সৃষ্টি হচ্ছে। তবে যেসব ধরনের প্রচলিত চাকরির দিকে প্রার্থীদের নজর বেশী সেগুলো হয় কোনটি বিলুপ্ত অথবা চাহিদার তুলনায় খুবই অপ্রতুল। এই সময়ে এসে প্রচলিত ধারার থেকে ব্যতিক্রম এবং সাধারনের তুলনায় কারিগরি ও শিক্ষাদিক্ষার দিকে কয়েকধাপ এগিয়ে থাকা প্রার্থীরাই চাকরিদাতাদের পছন্দের তালিকায় উপরদিকে অবস্থান করেন। তবে ব্লু কলার জব বা দক্ষতাভিত্তিক চাকরির বাজার সর্বদাই ক্রমবর্ধমান এবং বিগত কয়েক বছরে এসব চাকরির সুযোগ কয়েক গুণে বেড়েছে। ডেলিভারির কাজ, ড্রাইভিং এর চাকরি থেকে শুরু করে বিক্রয় প্রতিনিধি, সমস্তকিছুই এই ধরনের চাকরির আওতাভুক্ত।  এসব চাকরির গুরুত্ব এবং লাভদায়ক দিকগুলো বুঝতে হলে এর আদি-অন্ত বিশ্লেষণ করা প্রয়োজন। আজকের এই লেখাটিতে সেসব দিক নিয়েই আলোচনা করা হয়েছে এবং আশা রাখা যাচ্ছে এটি পাঠের মাধ্যমে আপনার জানার অভিপ্রায় অনেকটাই পুরন হবে।

ব্লু কলার বা দক্ষতা ভিত্তিক চাকরি কি?

অধিকাংশ মানুষজন ব্লু কলার কিংবা দক্ষতা ভিত্তিক চাকরিকে অড জব হিসেবে ভেবে থাকেন তাই এটির একটি পরিস্কার সংজ্ঞা দেয়া প্রয়োজন। সহজ কথায়, দক্ষ ও অদক্ষ ব্যক্তিরা যে ধরনের চাকরির মাধ্যমে কায়িক শ্রম প্রদান করে তাকে ব্লু কলার জব বলা হয়। যদিও অড জবের সঙ্গে এর বেশকিছু মিল রয়েছে যার প্রধান দিক হলো কায়িক শ্রম। এসব চাকরি বৈশিষ্ট্যভেদে নানা প্রকারের হতে পারে। কিছু ব্লু কলার চাকরিতে অত্যাধিক মাত্রার কাজের চাপ রয়েছে আবার কিছু ক্ষেত্রে কাজের মাত্রা তুলনামূলক কম। এক্ষেত্রে চাকরির ধরন সম্পূর্ণভাবেই নির্ভর করছে চাকরিদাতার প্রয়োজনীয়তার উপর।

বাংলাদেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে কিছু ব্লু কলার চাকরি আলাদাভাবে চাকরিপ্রার্থীদের নজর কেড়েছে। পাঠাও, উবার কিংবা সেবা এক্সওয়াইজেড এর মত গ্রাহক সেবাভিত্তিক ডিজিটাল প্লাটফর্ম জনপ্রিয় হবার কারনে এই সংশ্লিষ্ট ব্লু কলার চাকরির চাহিদা বেড়েছে। অ্যাপভিত্তিক এই সেবাগুলো প্রচলিত নিয়ম ভেঙ্গে ব্লু কলার চাকরিকে দিয়েছে নতুন একটি রুপ। আজকের দিনের তরুণ প্রজন্মরা এসব কাজে নিজেদের সংযুক্ত করার মাধ্যমে চাকরিতে প্রচলিত ধারণাগুলো ধীরে ধীরে পরিবর্তন করছে এবং এর দ্বারা ছাত্র বয়সেই নিজেদের জন্য দারুণ সব আয়ের সুযোগ তৈরি করছে। আর এসব চাকরির বেতনও ভাল। ব্লু কলার চাকরিগুলো একঅর্থে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা পরিবর্তনের ক্ষেত্রে অনেকাংশে অবদান রাখছে।

৫ টি জনপ্রিয় ব্লু কলার বা দক্ষতা ভিত্তিক চাকরি

লেখাটিতে পাঠকদের সুবিধার্থে এদেশের ৫ টি জনপ্রিয় ব্লু কলার চাকরির বিবরণ দেয়া হলো এবং চাকরিদাতারা এসব চাকরি প্রদানের ক্ষেত্রে প্রার্থীদের মধ্যে কি খুঁজে থাকেন সেই বিষয়েও একটি সম্যক ধারণা প্রদান করা হলো।

০১। নিরাপত্তা রক্ষীর চাকরি

নিরাপত্তা রক্ষীর চাকরিতে মূলত চাকরিদাতারা তার নিজ বাসস্থান ও প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তার জন্য নিয়োগ দিয়ে থাকেন। তুলনামূলক এই চাকরিতে বেশি বেতন রয়েছে তবে শারীরিকভাবে এ ধরনের কাজ বেশ ক্লান্তিকর একটি চাকরি। নিরাপত্তা রক্ষীর চাকরিতে দিনের কিংবা রাতের একটি লম্বা সময়ের জন্য কোন রকমের বিরতি ছাড়াই কর্মস্থলে কাজ করে যেতে হয়। নিয়োগকর্তাদের উপর ভিত্তি করে এ ধরনের চাকরিতে অন্যান্য সুবিধা থাকতেও পারে কিংবা নাও পারে। যেকোন ক্ষেত্রেই হোক, এ ধরনের চাকরিতে যোগদানের জন্য তেমন কোন দক্ষতার প্রয়োজন নেই তবে অবশ্যই কর্মঘন্টার দিকটি মাথায় রেখে এ চাকরিতে নিয়োগলাভের চিন্তা মাথায় আনা উচিত।

০২। ড্রাইভার পদে চাকরি

ব্লু কলার সেক্টরে ড্রাইভারের চাকরি সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয়। ডিজিটাল পরিবহন সেবাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান পাঠাও, উবার কিংবা সহজ-কে ধন্যবাদ এ ধরনের চাকরির প্রতি জনবলের আগ্রহ বাড়ানোর জন্য। এর মাধ্যমে গাড়ির পাশাপাশি মোটরবাইক চালকদের জন্যও বাড়তি আয়ের সুযোগ বাড়ছে। এই জানজটের রাজধানীর যাত্রাপথে কিছুটা সময় বাঁচাতে মোটরবাইক রাইড দিনদিন বেশ জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। তাই এমন সময়ে এসে নিজেকে ড্রাইভারের ভূমিকায় যুক্ত করা বেশ লাভজনক বটে। নিরাপত্তা রক্ষীদের কাজের মত ড্রাইভিং এর চাকরির একটি লম্বা কর্মঘন্টা থাকতে পারে, তবে তার পুরোটাই নির্ভর করছে নিয়োগকর্তাদের উপর।

এছাড়াও ড্রাইভিং এর কাজটি কি দীর্ঘ দুরত্বের নাকি কাছাকাছি একই দুরত্বে বারবার হবে সেটিও চাকরি দাতার উপর নির্ভরশীল। যদি ড্রাইভিং এর কাজটি কোন প্রতিষ্ঠানের জন্য হয় তবে এটি দীর্ঘ কর্মঘন্টার হয়ে থাকে তবে ব্যক্তিগত গাড়ি চালনার ক্ষেত্রে কর্মঘন্টার বিষয়টি অনেকটাই কমে আসে। দিনশেষে অবশ্যই এই বিষয়টি ক্ষেত্রভেদে ব্যতিক্রম হতে পারে। তাই ড্রাইভারের চাকরিতে প্রবেশের আগে অবশ্যই জেনে নিন এটি কেন আজকের দিনের সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ব্লু কলার চাকরি!

০৩। ডেলিভারি ম্যান এর চাকরি

রাইড শেয়ারিং কিংবা খাবার ডেলিভারি অ্যাপসভিত্তিক সেবাগুলোর ক্ষেত্রে ডেলিভারি ম্যান এর চাকরির সুযোগ রয়েছে এবং আজকের দিনে এই চাকরিটি অত্যন্ত জনপ্রিয়। শুধু তাই নয়, ছোট থেকে বড় সব অনলাইন শপ এবং ই-কমার্স সাইটগুলোর জন্যও ডেলিভারি ম্যানের প্রয়োজন। উক্ত চাকরিতে শারীরিক পরিশ্রমের মাত্রাটা অনেকটাই বেশী এবং চাকরিপ্রার্থীকে শহরের রাস্তা ঘাট সম্পর্কে সম্যকরূপে ধারণা থাকা অত্যাবশ্যক।

যদি আপনার শহরের রাস্তাঘাটগুলো পূর্ণরুপে না চেনা থাকে তবে এ চাকরিটি আপনার জন্য নয়। নির্দিষ্ট পণ্যটি পৌছানোর জন্য ডেলিভারি ম্যানকে একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কোন বাড়ি বা অ্যাপার্টমেন্ট খুঁজে বের করতে হয় যেটি একটি অত্যন্ত দক্ষতার কাজ। দিনশেষে অভিজ্ঞতা অর্জন এবং কিছু বাড়তি আয়ের জন্য দারুন একটি চাকরি এটি।

০৪। বিক্রয় প্রতিনিধির চাকরি

পাঠ্য বইয়ের ভাষায় বিক্রয় প্রতিনিধির চাকরি সবচেয়ে পুরনো একটি ব্লু কলার চাকরি। বিক্রয় প্রতিনিধির এ চাকরি একটি উচ্চ চাহিদার জনপ্রিয় চাকরি। এটির মূল কারণ বাজারে নতুন সব দোকান এবং ব্যবসার আবির্ভাব যেগুলোতে বেচাকেনার কাজে এবং ক্রেতাদের সন্তুষ্টির জন্য চৌকস বিক্রয় প্রতিনিধির প্রয়োজন। ব্লু কলার চাকরির মধ্যে এটি অপেক্ষাকৃত কঠিন একটি চাকরি কেননা এতে বিভিন্ন ধরনের মানুষ ও ক্রেতাদের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগের সম্পর্ক রয়েছে। একজন বিক্রয় প্রতিনিধিকে তার নিজের আবেগ নিয়ন্ত্রণ করে ক্রেতাদের সঙ্গে সুন্দর সম্পর্ক বজায় রাখতে হয় যা সেই ব্যবসায়ের মূল চালিকাশক্তি।

বিক্রয় প্রতিনিধির চাকরিতে লম্বা কর্মঘণ্টা হতে পারে অথবা কাজের ধরনের উপর ভিত্তি করে বিরতিযুক্ত কর্মঘন্টাও থাকতে পারে যার পুরোটাই নির্ভর করছে উক্ত প্রতিষ্ঠানটির কর্মপদ্ধতির উপর। ডিজিটাল এ যুগে নতুন এক ধরনের বিক্রয় প্রতিনিধির হিসেবে কাজের সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে যার পুরোটাই অনলাইন ভিত্তিক। ক্রমবর্ধমান ই-কমার্স ও অনলাইন মার্কেটপ্লেস সৃষ্টি হবার ফলে সেগুলোর জন্য দক্ষ বিক্রয় প্রতিনিধির প্রয়োজন হচ্ছে প্রতিনিয়ত। যারা নিয়মিত স্বশরীরে প্রতিষ্ঠানে এসে কাজ করতে চাননা তাদের জন্য অনলাইনে বিক্রয় প্রতিনিধি হিসেবে কাজের সুযোগ রয়েছে। নিজের ফোন কিংবা ল্যাপটপের মাধ্যমে সারাবিশ্বের যেকোন স্থানে বসে নিজের সুবিধামত সুযোগ থাকছে এ কাজে সম্পৃক্ত হবার।

০৫। বাড়ি তত্ত্বাবধায়ক বা হাউজকিপার এর চাকরি

তালিকার শেষ ব্লু কলার চাকরি হিসেবে আমি রাখছি বাড়ি তত্ত্বাবধায়ক কিংবা হাউজকিপার এর চাকরিকে। এ ধরনের কাজের ক্ষেত্র চাকরি বাজারে বরাবরই বেড়েই চলছে। কাজের ধরনের উপর ভিত্তি করে এ চাকরি অনেকটা বহুমুখী এবং কাজের সময়সূচীর দিকটিও প্রধানত চাকরিদাতার উপর নির্ভরশীল। এ ধরনের চাকরিতে কাজের বিরতি ও ভালো খাবার গ্রহনের সু্যোগ রয়েছে। হাউজকিপারের চাকরিতে বর্তমান বাজারে তুলনামুলক কম প্রতিযোগিতা রয়েছে এবং নিজের বর্ধিত বেতনের বিষয়ে এখানে খোলাখুলি কথা বলার সুযোগ পান প্রার্থীরা।

ব্লু কলার বা দক্ষতা ভিত্তিক চাকরির ভালো দিকগুলো

  • অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এ চাকরিতে মানানসই  কর্মঘন্টা থাকে। আর এক্ষেত্রে কাজের চাপটিও কর্মদাতার উপর নির্ভর করে তাই এখানে আলোচনার সুযোগ রয়েছে।
  • এসব চাকরির জন্য যতসামান্য দক্ষতার প্রয়োজন যা খুব সহজেই কাজে যোগদানের আগে কিংবা পরে শিখে ফেলা সম্ভব।
  • যেহেতু ব্লু কলার চাকরির বাজারে প্রচুর চাহিদা রয়েছে এবং প্রয়োজনের তুলনায় এসব চাকরিতে কর্মশক্তি কম তাই এতে আয়ের মানও বেশ মানানসই ও অনেকক্ষেত্রেই ভালো।
  • যদি আপনি উবার কিংবা পাঠাও এর মত অ্যাপসভিত্তিক সেবার জন্য কাজ করে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনার কাজের সময়ের ব্যাপারে অনেকটাই স্বাধীনতা রয়েছে।
  • যেসব কাগজাদি প্রয়োজন এই ধরনের চাকরিতে প্রবেশের জন্য তা খুব সহজেই জোগাড় কিংবা  বানিয়ে ফেলা যায়।
  • সর্বশেষ অন্যান্য কাজের তুলনায় এসব কাজের মানসিক ধকল কিংবা স্ট্রেসের পরিমান যতসামান্য।

ব্লু কলার বা দক্ষতা ভিত্তিক চাকরির সীমাবদ্ধতা

  • এসব চাকরির মূল সীমাবদ্ধতা ও অসুবিধার দিক হচ্ছে শারীরিক পরিশ্রমের আধিক্যতা এবং লম্বা সময়ের জন্য নিরলস খেটে যাওয়া।
  • হোয়াইট কলার চাকরি বা ডেস্ক জবের তুলনায় ব্লু কলার চাকরির বেতন অবশ্যই অনেক কম।
  • এসব ধরনের চাকরিতে উপরের পদে যাওয়ার সুযোগ একদম নেই বললেই চলে। ব্লু কলার জবে ব্যক্তি উন্নয়ন কিংবা কর্মজীবনে উন্নতির ক্ষেত্র অধিকাংশ ক্ষেত্রেই অনুপস্থিত।
  • নতুন প্রযুক্তির আবির্ভাব, অটোমেশন বা স্বয়ংক্রিয়তার ফলে চাকরি হারানোর সম্ভাবনা অনেকাংশেই উপস্থিত এসব চাকরিতে।
  • ব্লু কলার চাকরিতে আকস্মিক ঝুকির পরিমান বেশী।

কোথায় খুঁজবেন এসব ব্লু কলার বা দক্ষতা ভিত্তিক চাকরি

এতক্ষন ব্লু কলার বা দক্ষতা ভিত্তিক চাকরির সমস্ত বৃত্তান্ত নিয়ে আলোচনা করা হলো যাতে আশা করা যাচ্ছে আপনার জানার আগ্রহ অনেকটাই মিটিয়েছে। এখন জেনে নেয়া যাক কোথায় আপনি পাবেন এসব চাকরির খোঁজ। সংবাদপত্র কিংবা নানাবিধ প্রচারপত্রে এসব চাকরির খোঁজ হরহামেশাই খুঁজে পাওয়া যায়। আজকের এই ডিজিটাল যুগে অনলাইনেও মিলছে ব্লু কলার চাকরির খোঁজ

শেষকথা

সহজ কথায় ব্লু কলার বা দক্ষতা ভিত্তিক চাকরিতে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিগণ বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে একটি সম্পদ হিসেবে কাজ করে। এসব চাকরিতে যুক্ত মানুষগুলোর অবদান ছাড়া আমাদের আজকের এই অবস্থান কল্পনার অতীত ছিলো। সুতরাং ব্লু কলার কাজ সন্ধান করা অবশ্যই একটি বুদ্ধিমান এবং লাভজনক কাজ। লেখাটিতে উল্লেখিত সুবিধা এবং সীমাবদ্ধতার দিকগুলো বিবেচনা খুঁজে নিন আপনার পছন্দসই ব্লু কলার চাকরিটি। আশাকরছি লেখাটি আপনাকে কাজ বা চাকরি খোঁজার এ দুঃসাহসিক কাজে অনেকটাই সাহায্য করতে পারবে।

Have any Question or Comment?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *