ত্বকস্বাস্থ্য

ত্বকের কিছু সমস্যা ও তার ঘরোয়া প্রতিকার

আমরা ত্বক নিয়ে সবাই অনেক বেশি চিন্তা করি। যতোটা না অন্যান্য বিষয় নিয়ে তার থেকেও বেশি ত্বক নিয়ে করি। কারন আমরা সবাই সৌন্দর্য্যের পূজারী। কেউ দেখতে একটু ভালো হলেই সবাই তার প্রতি আকৃষ্ট হয়। মুখে যদি কালচে দাগ,মেছতা ও ব্রণের দেখা মেলে তাহলে তো সবার রাতের ঘুমই উড়ে যায়। তাই আজকাল সবাই সুন্দর হওয়ার জন্য কতো কিছুই না করে। দেশী-বিদেশী ব্র্যান্ডের নানা রকম ক্রিম ফেসওয়াশ ব্যবহার করে। কিন্তু সেই সৌন্দর্য্য সীমিত সময়ের জন্য। এসব ব্র্যান্ডের ক্রিম কসমেটিকস কিনে টাকা নষ্ট হয় ঠিকই কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয় না। হলেও শুধু নির্দিষ্ট সময়ের জন্য। এমনকি অনেকের ত্বকে এসব নামি দামি ক্রিম শুডও করে না। তবে চিন্তা করার কিছু নেই। আজ আমরা আপনাদের সাথে ত্বকের কিছু সমস্যা ও তার ঘরোয়া কিছু প্রতিকার নিয়ে হাজির হয়েছি। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক সেগুলো কি?

ত্বকের সমস্যা ও তার কারন :

  • ব্রণ – ব্রণের প্রধান কারন হলো ধুলা-বালি। যা ত্বকের লোমকুপকে বন্ধ করে দেয়। আর যার ফলে ব্রণ হয়। তাছাড়া আরও একটি কারন হচ্ছে অনেক বেশি মাত্রায় ফাস্ট ফুড খাওয়া।
  • মেছতা – মেছতা হচ্ছে একধরনের হরমোনাল প্রবলেম। প্রতিদিন অনেক সময় গ্যাসের চুলার কাছাকাছি থাকলে এই সমস্যাটি হয়। তাছাড়া এটি প্রেগনেন্সির কারনে এবং জন্মনিয়ন্ত্রক ওষুধের কারন হয়ে থাকে। এটি গরমে বাড়ে এবং ঠান্ডায় অনেক কমে থাকে।
  • তৈলাক্ত ভাব – অনেকেরই ত্বক তৈলাক্ত। গরমের দিনে এই সমস্যা বেশি হয় এবং রোদে বেশি সময় থাকলে ত্বকে তৈলাক্ত ভাব চলে আসে।
  • কালো দাগ – মুখে কালো দাগের প্রধান কারন হচ্ছে ঘুমের স্বল্পতা। রোদের আলোতে বেশি সময় থাকা। এমনকি অতিরিক্ত চিন্তা করলে মুখে বা চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে যায়।
  • চোখের নিচে কালো দাগ – আপনি জেনে অবাক হবেন যে কেবল ঘুম না হওয়া, কম্পিউটারের মনিটরের সামনে বসে থাকাই চোখের নিচে কালি পড়া কিংবা চোখ ফুলে যাওয়ার প্রাথমিক কারণ নয়। বরং নাসারন্ধ্রিতে সমস্যা, বংশগত সমস্যা, এলার্জি, মূত্রগ্রন্থিতে সমস্যা কিংবা রক্ত চলাচলে সমস্যা থাকার কারণেও চোখের নিচে কালো দাগ পড়ে। অনেকের আবার ঘুম হলেও এই কালো দাগ দূর হয় না চোখ থেকে৷

ব্রণ এবং ব্রণের দাগ থেকে মুক্তি পেতে ঘরোয়া কিছু টিপস:

ব্রণ। ব্রণ হচ্ছে ত্বকের সব সমস্যার  মধ্যে একটি। যা খুবই জটিল সমস্যা। এই ব্রণ টিনেজার অর্থাৎ ১৩-২০ বছর বয়সের মধ্যেই বেশি লক্ষ্য করা যায়। তৈলাক্ত মুখ এবং ময়লার থেকেই এই ব্রণের উৎপত্তি। ত্বক থেকে ব্রণ গেলেও ব্রণের দাগ কিন্তু থেকেই যায়। ব্রণ ত্বকের সব সমস্যা গুলার মধ্যে সব থেকে জটিল সমস্যা। মুখের কোনো এক কোণে ব্রণের দেখা মেললে সবার রাতের ঘুম হারাম হয়ে যায়। নামি দামি কসমেটিকসের পেছনে টাকা পয়সা খরচ করতে শুরু করে এবং সর্বশেষ ফলাফল জিরো। কারন সবার মুখে সব ধরনের প্রোডাক্ট শুড করে না।তাই আজ আমি আপনাদের কাছে এমন কিছু টিপস নিয়ে হাজির হয়েছি যা ব্যবহারে আপনার ব্রণ এবং ব্রণ থেকে হওয়া দাগ দুটোই ভ্যানিশ হবে। চলুন তাহলে দেখে নেওয়া যাক।

ব্রণের সমস্যা দূর করার জন্য ফেস প্যাক :

উপকরণ –

  1. কলা
  2. মধু
  3. লেবুর রস

পদ্ধতি-

  • প্রথমে আপনার ব্যবহার করা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখটা ভালো করে ধুয়ে নিন।
  • তারপর একটা পাকা কলার পেস্ট বানিয়ে তাতে ১চা চামচ মধু এবং ১চা চামচের ৪ ভাগের ১ভাগ লেবুর রস মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করুন।
  • এরপর আলতো ভাবে মুখে লাগান।শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন।

এতে আপনার স্ক্রিন সফট আর গ্লোয়িং হবে। এটি সপ্তাহে একবার করে ব্যবহার করুন। আর কিছু দিন পরেই আপনি এর ফলাফল দেখতে পাবেন। আপনি চায়লে প্রতিদিন সকালে পাকা কলা খেতে পারেন। এর মধ্যে রয়েছে পটাশিয়াম,ভিটামিন ই এবং সি। যা ক্রিনকে পরিষ্কার করতে এবং ব্রণের সমস্যা দূর করতে কার্যকারী।

ব্রণের দাগ থেকে মুক্তি পেতে

টিপস – ১

উপকরণ-

• হলুদ
• চন্দন কাঠের গুড়া
• পানি

পদ্ধতি-

১. প্রথমে মুখটা ভালো করে ধুয়ে নিন।
২. তারপর সমপরিমাণ হলুদ ও চন্দন কাঠের গুড়া নিয়ে তাতে পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে মুখের ব্রণ আক্রান্ত স্থানে লাগিয়ে নিন।
৩.শুকিয়ে যাবার পর পরিষ্কার ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে মাস খানেক ব্যবহার করলেই ভালো ফলাফল পাবেন।

হলুদ ত্বককে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। আর চন্দন কাঠের গুড়া ব্রণের দাগের সাথে মুখের যে কোনো দাগ দূর করতে সাহায্য করে।

টিপস – ২

উপকরণ –

• আপেল
• মধু

পদ্ধতি-

১. প্রথমে মুখটা পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।
২. এরপর আপেলের পেস্ট তৈরি করে তাতে ২চা চামচ মধু মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করে মুখে লাগিয়ে শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।
৩. মুখে টানটান ভাব আসলে তা ঠান্ডা পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ৫-৬ বার ব্যবহার করলেই পরিবর্তন নিজের চোখেই দেখতে পাবেন। এটি ব্রণের দাগ দুর করার জনপ্রিয় একটি পদ্ধতি। মধু ত্বককে নরম রাখে আর আপেল ত্বকের যে কোনো দাগকে দূর করে।

টিপস – ৩

উপকরণ –

• তুলসি পাতা
• মধু

পদ্ধতি-

১. আপনার ব্যবহার করা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখটাকে ধুয়ে নিন।
২. তারপর তুলসি পাতা বেটে তার সাথে ১চা চামচ মধু মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে ফেলুন।
৩.শুকিয়ে গেলে তা কুসুম কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে কয়েকবার ব্যবহার করলেই নিজেই পরিবর্তন লক্ষ্য করতে পারবেন। ব্রণের জন্য তুলসি পাতার রস খুব উপকারী। কারণ তুলসি পাতায় আছে আয়ূর্বেদিকগুণ।

টিপস – ৪

উপকরণ –

• নিম পাতা
• মুলতানি মাটি
• গোলাপ জল

পদ্ধতি-

১. প্রথমে মুখটাকে ভালো করে ধুয়ে নিন।
২. এরপর ৫-৬টা অথবা পরিমাণ মতো নিম পাতা বেটে তাতে ১চা চামচ তুলতানি মাটি এবং গোলাপ জল মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করে মুখে লাগান।
৩. শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। মাসে কয়েক বার ব্যবহার করতে পারেন। আশানুরুপ ফল পাবেন। নিম পাতা মুখের জীবাণুকে ধ্বংস করে মুখকে ব্রণ মুক্ত রাখতে সাহায্য করে।

ব্রণের সমস্যা দূর করার স্পেশাল কিছু টিপস –

১. ‌পরিমাণ মতো পানি পান করুন। বিশেষ করে সকালে উঠে খালি পেটে। এই পানি শুধু ব্রণের সমস্যায় নয়,ত্বকের এবং সাস্থ্য বিষয়ক সব ধরনের সমস্যা থেকে মুক্ত রাখে।
২. ফাস্টফুড এবং তৈলাক্ত জাতীয় খাবার পরিহার করুন।
৩. অনেকেই মেকআপ ব্যবহার করেন। এই মেকআপ ত্বকের জন্য একদমই ভালো নয়। তবে দরকারে ব্যবহার করতেই হয়। কিন্তু ব্যবহার করার পর অথবা মেকআপ করে কোনো অনুষ্ঠান এবং কোথাও ঘুরতে গেলে বাসায় এসে তা সাথে সাথে ফেসওয়াশ দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
৪. অনেকেরই একটা বদঅভ্যাস আছে। যেমন নখ দিয়ে ব্রণে আক্রান্ত স্থান খোচানো। ফলে আক্রান্ত স্থান দিয়ে রক্ত বের হয় এমনকি সেটা থেকে কালো দাগের সৃষ্টি হয়। তাই যতো তারাতারি সম্ভব এই বদঅভ্যাস ত্যাগ করুন।

যাদের দীর্ঘদিন যাবৎ ব্রণের সমস্যা এবং উপরোক্ত ঘরোয়া টিপস ব্যবহার করার ফলেও কোনো কাজ হচ্ছে না। তাদের জন্য আরেকটা টিপস ডাক্তারের শরনাপন্ন হওয়া। যতো দ্রুত সম্ভব ডাক্তারের সাথে আপনার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করুন।

মেছতা দূর করার জন্য ফেস প্যাক :

উপকরণ –

  • আলু
  • লেবুর রস
  • শসা

পদ্ধতি –

  • প্রথমে আপনার ব্যবহার করা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখটা ভালো করে পরিষ্কার করে নিন
  • আলুর খোসা ছাড়িয়ে আলুর পেস্ট তৈরি করে তার সাথে শসা কেটে শসার রস বের নিন তার সাথে ১চা চামচ মধু,১চা চামচ লেবুর রস,১চা চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করুন।
  • এরপর আলতো করে মুখে লাগিয়ে নিন। শুকানোর জন্য অপেক্ষা করুন।
  • পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এর পর শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন। এভাবে মাস খানেক লাগালে মেছতার দাগ দূর হয়ে যাবে।

ত্বক ভালো আর উজ্জ্বল রাখার ঘরোয়া কিছু উপায়

ত্বক ভালো আর উজ্জ্বল রাখার ঘরোয়া উপায়

এলোভেরা জেল, হলুদ, লেবুর রস, মধুর, বেসনের ফেস প্যাক :

উপকরণ:-

  • এলোভেরা
  • হলুদ
  • লেবুর রস
  • মধু
  • বেসন

পদ্ধতি:-

  1. প্রথমে আপনার ব্যবহার করা ফেসওয়াশ দিয়ে ভালো ভাবে মুখটা ধুয়ে নিন।
  2. তারপর ১চা চামচ এলোভেরা জেল,একটু পরিমান হলুদ, ১চা চামচের ৪ ভাগের ১ ভাগ লেবুর রস, ১চা চামচ মধু সাথে পরিমান মতো বেসন মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি কর মুখে লাগিয়ে নিন। এলোভেরাতে রয়েছে ভিটামিন এ,বি,সি যা ত্বকের জন্য অনেক উপকারী। মধুতে আছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট প্রোপারটিস। যা ত্বক কে নরম এবং ত্বকের লাবন্যতা ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে। লেবুতে আছে ভিটামিন সি,অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট প্রোপারটিস। যা ত্বকের জীবাণু দূর করে এবং ত্বকের তৈলাক্ত ভাব দূর করে। বেসনও ত্বকের জন্য অনেক উপকারী।
  3. এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এভাবে সপ্তাহে প্রতিদিন ব্যবহার করুন। তারপর তারপর থেকে সপ্তাহে ১দিন পর পর ব্যবহার করুন। এভাবে মাস খানেক ব্যবহার করলেই ত্বক ভালো এবং ত্বকের লাবন্যতা ধরে রাখতে সক্ষম হবেন।

হলুদের ফেস প্যাক :

উপকরণ:-

  • লেবুর রস
  • বেসন
  • দুধ
  • হলুদ

পদ্ধতি:-

  1. প্রথমে লেবুর রস ত্বকে লাগিয়ে ভালো করে ম্যাসাজ করুন। তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে নিন। শুকনো পরিষ্কার কাপড় দিয়ে ত্বককে মুছে ফেলুন। লেবুর রস ত্বকের সব জীবাণু বের করে দেয়। যা ত্বকের জন্য কার্যকরি।
  2. এরপর হলুদ, কাচা দুধ আর বেসন একসাথে মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করুন।
  3. তারপর আলতো ভাবে মুখে লাগান। শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এরপর ঠান্ডা পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন।

ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী ক্রিম এবং লেবুর ফেস প্যাক :

উপকরণ:-

  • ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী ক্রিম
  • লেবুর রস

পদ্ধতি:-

  1. ত্বক ভালো ভাবে পরিষ্কার করে নিন।
  2. এরপর পরিমাণ মতো ক্রিম আর সাথে লেবুর রস মিশিয়ে মুখে লাগন।
  3. ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে নিন।

পুদিনা পাতার ফেস প্যাক :

পদ্ধতি:-

  1. পুদিনা পাতা ত্বকের জন্য অনেক উপকারী। রোদে পোড়া ত্বকের পোড়া ভাব দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। প্রথমে গাছ থেকে পুদিনা পাতা এনে তা ভালো ভাবে ধুয়ে বেটে মুখে লাগিয়ে নিন। এভাবে ১০-১৫ মিনিট রাখুন।
  2. তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালো ভাবে ধুয়ে পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন। এভাবে মাস খানেক লাগালেই মুখে অনেক পরিবর্তন দেখতে পাবেন। ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়বে এবং পোড়া ভাব দূর হবে।

শসার ফেস প্যাক :

উপকরণ:-

  • শসা

পদ্ধতি:-

শসা ত্বকের জন্য অনেক উপকারী। এটি ত্বকের কোলোজেন কে বেধে রাখে, যার কারনে ত্বক সুস্থ ও সুন্দর হয়। এটিকে প্রথমে গোল গোল করে কেটে মুখে এমন ভাবে লাগান যাতে শসার রস ত্বকে মিশে যায়। চাইলে আপনি এটি বিভিন্ন খাবারের সাথে খেতেও পারেন। এটি চর্বি কমাতেও সাহায্য করে।

ত্বকের তৈলাক্ত ভাব দূর করার ফেস প্যাক :

উপকরণ –

  • লেবুর রস
  • মধু

পদ্ধতি-

  • প্রথমে মুখটা ফেসওয়াশ দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • এরপর ১চা চামচ লেবুর রস এবং ১চা চামচ মধু মিশিয়ে মুখে লাগান।
  • শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। লেবু ত্বকের তৈলাক্ত ভাব দূর করে আর মধু ত্বককে নরম করে। এভাবে কয়েকদিন ব্যবহার করলেই নিজের চোখেই পার্থক্য দেখতে পারবেন।

কালো দাগ দূর করার ফেস প্যাক :

উপকরণ –

  • চালের গুড়া
  • হলুদ
  • কাচা দুধ

পদ্ধতি-

  • প্রথমে আপনার মুখটা পরিষ্কার করে নিন।
  • এরপর ১চা চামচ চালের গুড়া,১চা চামচ হলুদ এবং পরিমাণ মতো কাচা দুধ মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করুন।
  • এরপর আলতো করে মুখে লাগিয়ে মাসাজ করুন।শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।এভাবে কিছুদিন ব্যবহার করলেই ভালো ফলাফল পাবেন।
চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়
চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়

আপনার চোখের নিচে কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়-

টিপস -১

উপকরন :

  • আলু

পদ্ধতি :

  • প্রথমে আপনার মুখটাকে ভালো করে ধুয়ে নিন।
  • এরপর খোসা সহ আলু বেটে পেস্ট তৈরি করে মুখে লাগিয়ে নিন।
  • তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে আপনার মুখটাকে ধুয়ে ফেলুন।

## এই আলু ত্বকের জন্য অনেক উপকারী। কালো দাগ দুরে করে দেয়।

টিপস – ২

উপকরন :

  • মধু

পদ্ধতি :

  • প্রথমে আপনার মুখটাকে ভালো করে ধুয়ে নিন।
  • এরপর পরিমান মতো মধু নিয়ে মুখে লাগিয়ে নিন।
  • শুকিয়ে গেলে আপনার ব্যবহার করা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখটা ধুয়ে ফেলুন।

## এই মধু আপনার ত্বককে মোলায়েম করবে এবং ত্বক থেকে কালো দাগ দুর করবে।

টিপস – ৩

উপকরন –

  • পুদিনা পাতা

পদ্ধতি :

  • প্রথমে ত্বক কে ভালো করে পরিষ্কার করে নিন।
  • এরপর কয়েকটা পুদিনা পাতা বেটে তা থেকে রস আলাদা করে সেই রস আপনার চোখের নিচে যে যে স্থানে কালো দাগ আছে তাতে লাগান।
  • শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।

পুদিনা পাতা চোখের নিচের কালো দাগ দুর করার প্রধান ঔষুধ।

টিপস – ৪

উপকরন :

  • কমলার রস
  • গ্লিসারিন

পদ্ধতি :

  • প্রথমে ত্বককে ভালো করে পরিষ্কার করে নিন।
  • এরপর ১চা চামচ কমলার রস,১চা চামচ গ্লিসারিন মিশিয়ে ত্বকে লাগান।
  • শুকিয়ে গেলে ভালো ভাবে ধুয়ে ফেলুন।
“উপরোক্ত টিপস গুলো মাস খানেক ব্যবহার করলেই ভালো ফল পাবেন।”

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close