গুগোল ফটোস সম্পর্কে ১৫ টি তথ্য

গুগোল ফটোস একটি সাধারণ ইমেজ হোস্টিং এর মত মনে হতে পারে কিন্তু না এটি আসলে বেশ শক্তিশালী একটি এ্যাপ। আপনি সম্ভবত জানেন যে গুগোল ফটোস (Google Photos) আপনার Android বা iOS ডিভাইস থেকে ফটোগুলি সরাসরি ব্যাক আপ করতে পারে, এবং যখন ইচ্ছা দেখতে পারেন আবার আপনি চাইলে এটি ওয়েব সাইটের মাদ্ধমেও একসেস করতে পারেন। তবে আরো একটি বিষয় হচ্ছে গুগোল ফটোস দেয় আনলিমিটেড ফ্রি স্টোরেজ তবে তা সর্বচ্চ ১৬ মেগাপিক্সেল পর্যন্ত, যখন আপনি তার চেয়ে বেশি মেগাপিক্সেলের ছবি রাখেন তাহলে তা গুগোল ড্রাইভে চলে যাবে (গুগোল ড্রাইভ আনলিমিটেড স্টোরেজ না)। এছাড়াও অনেক সুবিধা আছে আজ সেগুলো নিয়েই লিখব।

এ্যাডভান্স সার্চিং

গুগোল ফটোস সয়ংক্রিয়ভাবে আপনার ছবি সমুহ আপনার অবস্থান এবং তারিখ উনুযায়ি সাজিয়ে রাখে। উন্নত ইমেজ রিকগনিশন প্রযুক্তি এবং গুলোলের বিশাল তথ্য ভান্ডারের কারনে গুগোল খুব সহজেই আপনার ছবির সবকিছু চিনতে পারে। যার ফলে আপনি আপনার ছবির মদ্ধে হতে যেকোন কিছুর তথ্য খুজে পেতে পারেন, যেমন ছবিটি যে জায়গাতে তোলা সে জায়গা খুজে পাতে পারেন,ছবিতে যদি কোন রেস্টুরেন্ট,হোটেল ইত্যাদি থাকে তাহলে আপনি সেগুলোও সার্চ করে খুজে পেতে পারেন। সার্চ করার জন্য নিচের ডান দিকে সার্চ আইকনে ক্লিক করুন এরপর সার্চ বক্সে লিখুইন আপনি কি সার্চ করতে চান।

একইরকম চেহারার ছবি খুজে বের করুন

ধরুন আপনার ফোনে অনেক ছবি আছে কিন্তু সেখান থেকে শুধু আপনার ছবিগুলো দেখতে চান তাহলে আপনি গুগোল ফটোসের দারা শুধু মাত্র আপনার ছবি খুজে পেতে পারেন। কারন এই এ্যাপে সিমিলার ফেস অপশন যুক্ত করা আছে। এই অপশনট চালু করার জন্য সেটিংসে যান, সেখানে সিমিলার ফেস নামে অপশন পাবেন সেটা অন করে দিন

উন্নত ব্যাকআপ সেটিংস

ফটোস ব্যাকআপ করার খেত্রেও গুগোল অসাধারন কিছু প্রযুক্তি ব্যাবহার করছে যেমন আপলোড সাইজ, আপলোড মোড ইত্যাদি।

  • আপলোড সাইজঃ যেহেতু আপনি যদি ১৬ মেগাপিক্সেলের বেশি ফটো আপলোড করলে আনলিমিটেড স্টোরেজ পাবেন না সুতরাং আপনার ফটোর সাইজের উপর নজর রাখতে হবে। সুতরাং আপনি এই সেটিং ব্যাবিহার করতে পারেন। এখানে আপনি নির্ধারন করতে পারেন যে ছবিটি আপলোড হবার সময় কোন সাইজে আপলোড হবে।
  • আপলোড মোডঃ আপনি আপনি যদি লিমিটেড ডেটা ব্যাবহার করেন তাহলে আপনার উচিৎ এই সেটিং ব্যবহার করা আপনি চাইলে এখান থেকে নির্ধারন করতে পারেন আপনার ছবিগুলো মোবাইল নেটওয়ার্কে আপলোড হবে নাকি ওয়াইফাই নেটওয়ার্কে।
  • চার্জিং অনলিঃ আপনি যদি এই সেটিং ব্যবহার করেন তাহলে আপনার ছবিগুলো তখনি আপলোড হবে যখন আপনার ফোনটি চার্জিং অবস্থায় থাকবে।
  • ফোল্ডার ব্যাকআপঃ আপনি যদি কোন ফোল্ডার ব্যাক আপ হওয়া থেকে বাদ রাখতে চান তাহলে আপনি সেটিও করতে পারবেন।

আপলোড করার পর ডিলেট

আপনি যদি মনে করেন ছবিগুলো তো গুগোলে আছেই তাহলে আর ফোনে রেখে কি লাভ তাহলে এই সিস্টেমটি আপনার জন্য আপনি যদি এই সিস্টেম অন করেন তাহলে ছবি ব্যাকআপ হওয়ার পর সয়ংক্রিয় ভাবে আপনার ফোন থেকে ডিলেট হয়ে যাবে।

অন্যান্ন এ্যাপ থেকে ব্যাকআপ

অন্য কোন এ্যাপে যদি আপনার ছবি থাকে তাহলে আপনি সেখান থেকেও ছবি ব্যাক আপ নিতে পারবেন। যেমন হয়াটসএ্যাপ, ইন্সটাগ্রাম ইত্যাদি।

আনডিলিট

গুগোল ফটোস হতে ডিলিট করা কোন ছবি পুনরায় ফিরিয়ে আনতে পারবেন। ডিলিট হওয়া ছবি সমুহ আপনি ট্র্যাশের মদ্ধে পাবেন।

ক্রোমকাস্টের দ্বারা টিভিতে দেখা

আপনার যদি ক্রোমকাস্ট থাকে তাহলে আপনি আপনার ফোন থেকে ছবি সমুহ টিভিতে দেখতে পারবেন।

গুগোল ড্রাইভ এবং ফটোস এক সাথে ব্যাবহার

এই সিস্টেমের দ্বারা আপনি গুগোল ফটোসে গুগোল ড্রাইভের সকল ছবি দেখতে পারবেন এবং ফটোসকে ড্রাইভের মত করে ব্যবহার করতে পারবেন।

অফলাইনে গুগোল ফটোস

গুগোল ফটোসের সবচেয়ে বড় সুবিধা হল আপনি অফলাইনে থাকা অবস্থায়ও এটি ব্যবহার করতে পারবেন।

স্টোরি, এনিমেশন, কোলাজ

ব্যাক আপ থাকা ছবিগুলো দিয়ে আপনি ইচ্ছা করলে স্টোরি, এনিমেশন, এবং ছবি সমুহ কোলাজ করতে পারবেন।

ছবি ইডিটিং

আরএকটি মজার বিষয় হল আপনি এই এ্যাপ দ্বারা ছিবিও ইডিট করতে পারবেন অন্য কোন ফটো ইডিটর এ্যাপ ব্যাবহার না করেই।

এখন আপনি ভেবে দেখুন এই একটি এ্যাপের মাদ্ধমে আপনি কত কিছু পাচ্ছেন একদম বিনামূল্যে। লিখাটি কেমন লাগলো জানাতে ভুলবেন না। ধন্যাবাদ

Leave a Comment