বিউটি টিপসস্বাস্থ্য

অ্যালোভেরার উপকারিতা

Aloevera (আ্যলোভেরা)।যার বাংলা নাম ঘৃতকুমারী।এবং ইংরেজীতে Medicinal plant.একে রোগ নিরাময়ের এক গুরুত্বপূর্ন ভেষজ বলা হয়।আ্যলোভেরা দেখতে অনেকটা কাঁটাওয়ালা ক্যাকটাস বা ফনিমনসার মতো হলেও এটি ক্যাক্টাস নয়।বরং এটি লিলি প্রজাতির উদ্ভিদ।এর পাতা অনেকটা আনারসের পাতার মতো দেখতে।এর পাতাগুলো পুরু, দুইধারে করাতের ন্যায় কাঁটাযুক্ত এবং ভেতরে লালার মত পিচ্ছিল শাঁস থাকে।আ্যলোভেরা মূলত মরুঞ্চলের উদ্ভিদ।

আ্যলোভেরা পাওয়া যায় কোথায়

আ্যলোভেরা যেকোনো জায়গাই চাষ করা যেতে পারে।বেলে বা দোঁয়াশ যেকোনো মাটিতেই আ্যলোভেরা ভালো হয়।আ্যলোভেরা খুব উপকারী ভেষজ বলে অনেকেই এটিকে চাষ করে।আপনি চাইলেও এটিকে আপনার বাগান,ছাদ কিংবা আপনার ব্যালকনি বা টবেও এটিকে চাষ করতে পারেন। এছাড়া,যেকোনো সুপার শপেও,রাস্তা-ঘাটে,ভ্যানেও আ্যলোভেরা বিক্রি করতে দেখা যায়।

আ্যলোভেরা টবে কিভাবে চাষ করবেন:

আ্যলোভেরা চাষ বা রোপন খুব সহজ একটি বিষয়।আপনাকে এই আ্যলোভেরা গাছটিকে খুব বেশী যত্ন ও করতে হবে না।দুই উপায়ে আ্যলোভেরা গাছ টবে লাগানো না। 1.পাতা থেকে চারা বানানো 2.চারা রোপন।

পাতা থেকে চারা রোপন:

আপনি চাইলে একটি পাতা থেকেও আ্যলোভেরা গাছ লাগাতে পারেন।প্রথমে একটা আ্যলোভেরার পাতা নিন সাদা অংশটুকু সহ।খেয়াল রাখতে হবে এই সাদা অংশটুকু যেন কোনভাবেই ভেঙে না যায়।এরপর একটা ছোট টবে মাটি এবং বালু মিশিয়ে নিন।এরপর এতে গর্ত করে সাদা অংশটুকু মাটির গর্তে বসিয়ে রোপন করুন।এরপর বেশ কিছুদিন পরে এই অংশ থেকে শিকড় বেরিয়ে গেলে বড় মাটির টবে রাখুন।

টবে আ্যলোভেরা চারা রোপন পদ্ধতি:

একটি আ্যলোভেরা চারা সংগ্রহ করুন।এরপর একটি মাটির টব নিন।আ্যলোভেরা মাটির টবে ভালো হয়।অবশ্য আপনার পছন্দনুযায়ী টব ও বাছাই করতে পারেন।এরপর মাটিতে বালু এবং গোবর সার মিশিয়ে নিন।এরপর চারাটি রোপন করে পানি দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন।দেখবেন আপনার বাছাইকৃত টবে যেন একটা ছিদ্র থাকে।যাতে পানি জমতে না পারে। এটি কখনোই সরাসরি সূর্যের আলোতে রাখা উচিত নয়।এবং প্রতিদিন না পারলেও সপ্তাহে 2-3 দিন পানি দিতে ভুলবেন না।

আ্যলোভেরায় কি কি উপাদান রয়েছে:

আ্যলোভেরায় রয়েছে 22 টি আ্যামাইনো এসিড সহ ভিটামিন এ,ভিটামিন বি,ভিটামিন বি12 এবং প্রচুর পরিমান মিনারেল।যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ বৃদ্ধিতে বেশ সহায়তা করে।এবং শরীরের রক্ত সঞ্চালনে কার্যকরী।

আ্যলোভেরা জেল বের করার পদ্ধতি

প্রথমে আ্যলোভেরার একটি পাতা নিন।এরপর পাশের কাটা যুক্ত অংশ ফেলে দিন।এরপর দেখবেন কিছুটা হলুদ রস বের হচ্ছে এটি শরীরের জন্য ক্ষতিকর।তাই এটিকে ভালো ভাবে ধুয়ে ফেলুন যাতে হলুদ রস না থাকে।এরপর আ্যলোভেরার উপরের এবং নিচের সবুজ অংশটি ফেলে দিন ছুড়ির সাহায্য।তাহলেই যে সাদা শ্বাসযুক্ত অংশটি পাবেন সেটিই আ্যলোভেরা জেল।

আ্যলোভেরার গুনাগুন…

আ্যলোভেরার রয়েছে ব্যাপক গুনাগুন।।চুল কিংবা ত্বকের যত্নে এর জুড়ি মেলা ভার।তাছাড়া এই আ্যলোভেরার শরবত বেশ সুস্বাদু এবং গরমের দিনে এক স্বস্তি নিয়ে আছে।

ত্বকের যত্নে আ্যলোভেরা: 

আ্যলোভেরা ত্বকের মেছতার দাগ দূর করতে দারুন সহায়ক।প্রতিদিন রাতে ঘুমোতে যাবার আগে আঙ্গুলে একটু আ্যলোভেরা জেল নিয়ে মেছতায় ম্যাসাজ করুন।নিয়মিত ব্যবহার মেছতা কমে যাবে। গরমের দিনে সানবার্ন খুব কমন একটা বিষয়।এই সানবার্নের হাত থেকে রক্ষার জন্য সপ্তাহে 3-4 বার যদি আ্যলোভেরা জেল এবং মধু মিশিয়ে আপনার সানবার্ন এরিয়াতে ম্যাসাজ করুন।এতে সানবার্ন একদম ই চলে যায়।ত্বকের তামাতে ভাব দূর হয় এবং আপনি আর্কষনীয় ত্বক পাবেন। ত্বক কোমল এবং সতেজ রাখতে নিয়মিত আ্যলোভেরা প্যাক ব্যবহার করুন।ডিমের সাদা অংশ,আ্যলোভেরা জেল এবং লেবুর রস দিয়ে একটি মিশ্রন তৈরী করে ফেইসে লাগান।শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন।ত্বকে লাবন্যতা ফিরে আসবে। মেকাপ তোলার ক্ষেত্রে আ্যলোভেরা খুব ই কার্যকরী।মেকাপ তোলার সময় একটি কটন প্যাডে নারকেল তেল কিংবা অলিভ ওয়েলের সাথে আ্যলোভেরা জেল মিশিয়ে ফেইসে ম্যাসাজ করুন।সব মেকাপ অতি সহজে তুলে যাবার পাশাপাশি ত্বক হবে কোমল। ত্বকের ফাটা দাগ দূর করতে আ্যলোভেরা সবচেয়ে কার্যকরী।প্রতিদিন ত্বকের ফাটা অংশে আ্যলোভেরা ম্যাসাজ করুন।এতে ত্বকের ফাটা দাগ থাকবে না। চালের গুড়া,আ্যলোভেরা জেল এবং মধু ফেইসে স্কাবার হিসেবে দারুন ভুমিকা পালন করে। নিয়মিত আ্যলোভেরা ম্যাসেজে আপনার দামী মাস্ক ক্রিম,স্কাবার ক্রিমের,ম্যাসাজ ক্রিমের চেয়েও উপকারী। ত্বকের বলিরেখা কমাতে নিয়মিত আ্যলোভেরা জেল ,কমলার খোসার গুড়া,মধু,তুলসি পাতার রস একটা নিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে ম্যাসাজ করুন।ত্বকে বলিরেখা থাকবে না। ব্রনের দাগ দূর করতে আ্যলোভেরা জেল, মুলদানি মাটি এবং চন্দনের গুড়া ব্যবহার করুন।ব্রনের দাগ চলে যাবে।

চুলের যত্নে আ্যলোভেরা:

চুলের যত্নে আ্যলোভেরা খুব প্রয়োজনীয় একটা উপাদান।আ্যলোভেরা জেল রোজ চুলের স্কাল্পে লাগান।চুল ঘন এবং স্বাস্থ্যজ্জ্বল হবে। চুল পড়ছে?সবচেয়ে কার্যকরী সমাধান আ্যলোভেরা। একটি তেল বানাতে পারেন।আ্যলোভেরা জেল ,জবা ফুল,আমলকি এবং নারকেল তেল একসাথে কতক্ষন জ্বাল করুন।এরপর ঠান্ডা হয়ে গেলে একটি বোতলে সংরক্ষন করুন।নিয়মিত ব্যবহারে চুল পড়া বন্ধ হবে। চুল লম্বা করতে আ্যলোভেরা জেল খুব প্রয়োজনীয় আ্যলোভেরা জেল আর লেবুর রস মিশিয়ে চুলে নিয়মিত দিন।চুল লম্বা এবং শাইনিং হবে। সপ্তাহে একটি আ‌্যলোভেরার হেয়ার প্যাক লাগাতে পারেন চুলে।আ্যলোভেরার জেল,টকদই,মেথি এবং জবা ফুল একসাথে বেটে নিন।এরপর চুলে লাগিয়ে রাখুন 15-20 মিনিট।এরপর শ্যাম্পু করে ফেলুন।নিজেই পার্থক্যটা লক্ষ করবেন। আ্যলোভেরা জেল এবং মেহেদী পাতা মিশিয়ে একটা প্যাক বানান।এরপর এটি চুলে লাগিয়ে রাখুন।এতে চুলের গোড়া শক্ত হবে।

পেটের যত্নে আ‌লোভেরা:

পেটে ব‌্যাথা কমাতে আ্যলোভেরা খুব ই কার্যকরী।আ্যলোভেরার জেল পানিতে মিশিয়ে খেতে পারেন।পেটে ব্যাথা কমে যাবে। রক্তপাত কমাতে আ্যলোভেরা কাটা জায়গায় আ্যলোভেরা জেল লাগান।কাটা জায়গা দ্রুত নিরাময় হবে। পোড়া জায়গায় আ্যলোভেরা রান্না করতে গিয়ে হাত পুড়লে আ্যলোভেরা জেল লাগান।ফোসকা পড়বে না।এবং ত্বক ভালো থাকবে।

আ্যলোভেরার অপকারিতা

আ্যলোভেরার উপকারিতা থাকলেও কিছু অপকারিতা রয়েছে।অনেকের। আ্যলোভেরায় এর্লার্জী থাকে।যাদের আ‌লোভেরায় এ‌লার্জী তাদের। জন্য আ‌্যলোভেরা উপকারের চেয়ে ক্ষতি সাধান বেশী করে।তাই আ্যলোভেরা প্রয়োগের আগে আপনার এতে এ্যালার্জী আছে কিনা তা জেনে নেয়া আবশ্যক। তাছাড়া আ্যলোভেরা কাটার পরের হলুদ অংশটুকুও শরীরের জন্য ভালো না।তাই এই হলুদ অংশটুকু যেন শরীরের কোথাও না লাগে সেদিকে লক্ষ রাখা উচিত।

শেষ কথা

আ্যলোভেরা একটি উপকারী উদ্ভিদ হলেও এটি ব্যবহার করার আগে এটি পরীক্ষা করে নেয়া উচিত।সবারের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা,অভ্যস্ততাএক হয় না। তাই ব্যবহারের আগে শরীরের জন্য কতটুকু গ্রহনযোগ্যতা ভাবে সেটি ভেবে নেয়া উচিত।আশা করি এই লেখাটুকু দ্বারা আপনারা উপকৃত হবেন।ভালো থাকুন,সুস্থ থাকুন

 

লিখেছেন   : Sristy Saha  

ছবি :  ইন্টারনেট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button